মেনু নির্বাচন করুন

বালিঘাটা আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

  • সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
  • প্রতিষ্ঠাকাল
  • ইতিহাস
  • প্রধান শিক্ষক/ অধ্যক্ষ
  • অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
  • ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
  • পাশের হার
  • বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
  • বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল
  • শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
  • অর্জন
  • ভবিষৎ পরিকল্পনা
  • ফটোগ্যালারী
  • যোগাযোগ
  • মেধাবী ছাত্রবৃন্দ

জয়পুরহাট জেলার অন্তর্গত পাঁচবিবি উপজেলা অধীনে ২নং ওয়ার্ডে অবস্থিত। অত্র এলাকার বিদ্যুৎসাহী ও বিদ্যানুরাগী সাবেক পরিচালক স্বাস্থ্য, ডাঃ মোয়াজ্জেম হোসেন সাহেবের একান্ত প্রচেষ্টায় ১৯৮৭ ইং সালে খরিদকৃত ৪২ শতাংশ জমির উপর একটি বাঁশের বেড়ার উপর টিনসেড কাঁচা গৃহ দিয়ে এর শুভ যাত্রারা সুচনা করা হয়। পরবর্তীতে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে ১৯৯৯ ইং সালে ৩ কক্ষ বিশিষ্ট একটি পাকা ভবন বালিঘাটা আদর্শ রেজিঃ প্রাথমিক বিদ্যালয় নামে পরিপূর্ণ রূপ লাভ করে।

১৯৮৭ ইং সালে ৪ জন জমিদাতার দানকৃত ৪২ শতাংশ জমির উপর ১টি কাঁচা ঘর দিয়ে ১৫০/১৮০ জন ছাত্র/ছাত্রী ও ৪ জন শিক্ষক / শিক্ষিকা দ্বারা পাঠ দান সম্পাদন সহ সফল কর্মকান্ড সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার ক্ষেত্রে একটি দক্ষ ম্যানেজিং কমিটি বিশেষ ভূমিকা পালন করতে থাকেন।

এই ভাবে ১৯৮৭ ইং - ২০০৩ ইং সাল এই দীর্ঘ সময়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি ক্রমান্বয়ে উন্নতীর দিকে অগ্রসর হতে থাকে যেমন ছাত্র/সংখ্যা ৩০০ জন - ৩৫০ জন উন্নতি হয় এবং এরই মধ্যে একজন শিক্ষক হঠাৎ অসুস্থ হয়ে শিক্ষকতা হতে পদত্যাগ করেন। এই বিশাল শিক্ষার্থীর সুষ্ঠু শিক্ষা ব্যবস্থা সচল রাখার উদ্দেশ্যে ৩ জন শিক্ষকের স্থলে শিক্ষা ব্যবস্থা সচল রাখার উদ্দেশ্যে ৩ জন শিক্ষকের স্থলে ৪ জন শিক্ষার্থী একান্ত জরুরী হয়ে পড়ে।

এমতাবস্থায় বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সুপারিশক্রমে প্রধান শিক্ষক অত্র এলাকার একজন সৎ, চরিত্রবান ও স্নাতক ডিগ্রীধারী তরুন যুবককে অস্থায়ী ভাবে পাঠদানে সহায়তা করার জন্য মৌখিক আদেশ দান করলে সে নিষ্ঠার সহিত দায়িত্ব পালন করতে থাকে।

এমতাবস্থায় বিগত ২০০৩-২০০৫ ইং এই ২/৩ বছর ২ জন সহকারী শিক্ষক বিভিন্ন কারণে বিদায় নিলে বিদ্যালয়ে ব্যাপক শিক্ষক ঘাটতি দেখা দেয়। তখন ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক এবং কমিটির সভাপতি উভয়ে কমিটি এবং উপজেলা শিক্ষা অফিসারের সলাপরামর্শক্রমে এই ঘাটতি পুরনের লক্ষ্যে দুই জন শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগদান কার্যক্রম পরিচালনা করে।

পরবর্তীতে এই নিয়োগকে কেন্দ্র করে নিজের স্বার্থ চরিতার্থ করার অভিপ্রায়ে বিদায়ী একজন শিক্ষিকা অবৈধভাবে ২০০৫ ইং সালে ১৫৭/২০০৬ ইং অন্য এই নামে তৎকালীন ম্যানেজিং কমিটির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার আদেশ চেয়ে পাঁচবিবি / জয়পুরহাট সহকারী জেলা জজ আদালতে মোকদ্দমা দায়ে করলে দীর্ঘ ৩/৪ বছর শুনানী অন্তে তাহা খারিজ এবং অতপর জয়পুরহাট জেলা জজ আদালতে আপিল করলেও তাহা খারিজ মর্মে বিজ্ঞ আদালত মতামত দান করনে। বর্তমানে তাহা প্রায় সমাপ্তির পথে।

অতঃপর প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক মিসেস সামছুননাহার তাহার সকল প্রচেষ্ঠার জ্ঞান গরিমা এবং প্রয়োজনে সাধ্যমত আর্থিক সহায়তা দান অব্যাহত রেখে সুনাম ও নিষ্ঠার সহিত দায়িত্ব পালন করে বিগত ১০/১১/২০১১ ইং তারিখে নিয়ম মাফিক পরবর্তী সহকারী প্রধানকে নিজ দায়িত্ব বুঝে দিয়ে অবসর গ্রহন করেন।

বর্তমানে দায়িত্ব প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক তার দায়িত্ব ও কর্তব্য নিষ্ঠার সহিত পালন করার চেষ্টা করছেন।

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
মিসেস দৌলতুন নেছা ০১৭১৭৮৭৭২৫০ badorshogps@gmail.com

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
মোঃ রাফি খাঁন ফারম্নকী ০১৯৪৯-৭৯০৪৯৭ badorshogps@gmail.com
মোছাঃ রাজিয়া সুলতানা ০১৯৪২-২০৬৮০২ badorshogps@gmail.com
মোছাঃ কোহিনূর বেগম ০১৭৫৮-৫৬৩০১০ badorshogps@gmail.com

শ্রেণি

বালক

বালিকা

মোট

শিশু

 

 

 

১৮

২৩

৪১

২৩

১৮

৪১

১৪

১৯

৩৩

৪র্

১৪

১৬

৩০

০৬

১৮

২৪

   ১৬৯

১০০%

ক্রমিক নং

নাম

পদের নাম

মন্তব্য

মিসেস সুফিয়া শরিফ

সভাপতি

 

মোঃ রাজীব উদ্দিন সরদার

সহ সভাপতি

 

মোঃ মীর রেজাউল করিম

সদস্য

 

মোঃ রাফি খাঁন ফারম্নকী

সদস্য

 

মোঃ ফারম্নক আহম্মেদ

সদস্য

 

মোঃ ইছাহাক আলী

সদস্য

 

মোঃ রেজাউল ইসলাম

সদস্য

 

মিসেস আমিনা খাতুন

সদস্য

 

মিসেস খাদিজা খাতুন

সদস্য

 

১০

মিসেস পপি খাতুন

সদস্য

 

১১

মিসেস দৌলতুন নেছা

সদস্য সচিব

 

সন

মোট পরীক্ষাথী সংখ্যা

উত্তীর্ন পরীক্ষাথীর সংখ্যা

পাশের হার

মন্তব্য

২০০৮

৩২

৩০

৯৮%

 

২০০৯

২৪

২০

৯৮%

 

২০১০

৩৯

৩৪

৯৫%

 

২০১১

৩২

৩০

৯৭%

 

২০১২

৩০

১৯

৮৮%

 

বিদ্যালয়টি পৌর এলাকায় হওয়ায় শিÿার জন্য উপবৃত্তির আওতাভুক্ত নয় ।

আমাদের এই বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করে অনেক ছাত্র/ছাত্রী কেউ ব্যারিষ্টার, কেউ সাংবাদিক, স্নাতক, ডিগ্রী লাভ করেছে। বর্তমানে অনেক ছাত্র/ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত আছে। কেউ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করেছে। কেউ কেউ বিভিন্ন ব্যাংকে ভাল পদে চাকুরী করছে। বিভিন্ন কোম্পানীতে চাকুরীরত আছে।

ভবিষ্যৎ-এ বিদ্যালয় ভবনটি দ্বিতল ভবনে পরিনত হবে। বিদ্যালয় মাঠে সীমানা প্রাচীর দিয়ে একটি মাত্র দরজা থাকবে। বিদ্যালয় মাঠে প্রাচীরের সঙ্গে ফুলের বাগান করা হবে। এক পার্শ্বে ছাত্র/ছাত্রীদের লেখার জন্য বিভিন্ন উপকরণ সাজানো থাকবে। প্রতিটি শ্রেণীতে প্রয়োজনীয় ফ্যান থাকবে যাতে করে ছাত্র/ছাত্রী গরমে কষ্ঠ না পায়। লেখাপড়ায় যেন বেশী মনোযোগী হয় এবং লেখাপড়ার মান যেন আরো ভালো হয় বিদ্যালয়-এর বারান্দা গ্রীল দিয়ে ঘিরে সেখানে টবে করে ফুলের গাছ লাগানো হবে।

উপরেল্লেখিত কাজগুলো সম্পন্ন করতে হলে প্রচুর অর্থে প্রয়োজন। অর্থের যোগান পেলে ভবিষ্যৎ-এ কাজগুলো সম্পন্ন করব বলে আশা রাখি।

বালিঘাটা আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

গ্রাম- বালিঘাটা, ডাকঃ পাঁচবিবি, উপজেলাঃ পাঁচবিবি, জয়পুরহাট

Facebook Twitter